1. admanu3@gmail.com : admanu :
  2. arnasir81@gmail.com : আব্দুর রহমান নাসির - বিশেষ প্রতিবেদক : আব্দুর রহমান নাসির - বিশেষ প্রতিবেদক
  3. nrad2007@gmail.com : এডমিন পেনেল : এডমিন পেনেল
  4. kawsarkayes@gmail.com : মোঃ আবু কাউসার - বিশেষ প্রতিবেদক : মোঃ আবু কাউসার - বিশেষ প্রতিবেদক
  5. ad@gil.com : মোহাম্মদ আবু দারদা সহ-সম্পাদক : মোহাম্মদ আবু দারদা সহ-সম্পাদক
  6. mrahman192618@gmail.com : মশিউর রহমান খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় : মশিউর রহমান খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়
  7. rafiqpress07@gmail.com : সম্পাদক ও প্রকাশক - এম.রফিকুল ইসলাম : সম্পাদক ও প্রকাশক - এম.রফিকুল ইসলাম
  8. asmarimi85@gmail.com : আসমা আক্তার রিমি সহ-সম্পাদক : আসমা আক্তার রিমি সহ-সম্পাদক
চট্টগ্রামে ট্রাফিক পুলিশের নাম করে শ্রমিক নেতা ইমন'র চাঁদাবাজি - দৈনিক প্রথম সংবাদ
সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৩:৩৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
নীলফামারীতে শ্রমিকদলের আংশিক কমিটি অনুমোদিত সাপাহারে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের নীতির রাজাকে ধারণ ও চর্চা করাই হচ্ছে রাজনীতি – শ ম রেজাউল করিম আজ বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে শারদীয়া দুর্গোৎসব দাম্মামে বিশিষ্ট কিডনি স্পেশালিষ্ট ডাঃ ওয়াহিদুজ্জামানের বিদায়ী সংবর্ধনা চবি’তে ভর্তি পরীক্ষা হবে সরাসরি-সশরীরে বঙ্গবন্ধু অসাম্প্রদায়িক চেতনার মূর্ত প্রতীক: ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী কিশোরগঞ্জে পূজামণ্ডপ পরিদর্শনে ইউপি চেয়ারম্যান চুনারুঘাট ইউএনও’র সাথে অনলাইন প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের মতবিনিময় ডিসেম্বর পর্যন্ত এনজিওর ঋণের কিস্তি আদায় স্থগিত – জেলা প্রশাসক

চট্টগ্রামে ট্রাফিক পুলিশের নাম করে শ্রমিক নেতা ইমন’র চাঁদাবাজি

প্রথম সংবাদ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ১ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি।।

বিআরটিএর তথ্য মতে চট্টমেট্রো আঞ্চলিক পরিবহন কমিটির অনুমোদিত ১১ নং রুটের যানবাহনগুলো চট্টগ্রাম নগরীর আল মাস সিনেমা-ওয়াসার মোড়-গরিবুল্লাহশাহ মাজার-ফয়েজ লেক– একে খান মোড়-কর্নেল হাট-সিডিএ পর্যন্ত চলাচল করার কথা তবে সেসব গাড়িগুলো চলছে একে খান-ফয়েজ লেক-খুলশি হয়ে জিইসির মোড় পর্যন্ত অর্থাৎ রুট কমপ্লিটও করে না এবং অন্যরুট ব্যবহার করছে। যা বিআরটিএর ভাষায় পারমিটের শর্ত ভঙ্গ। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা হিসেবে এইসব অটোটেম্পোর বিরুদ্ধে সড়ক পরিবহন আইনের ৭৭ নং ধারা অনুযায়ি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা নগর ট্রাফিক পুলিশের।

সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ এর ৭৭ ধারায় বলা হয়েছে রুট পারমিট ব্যতীত পরিবহন যান চালনা করা বা চালনার অনুমতি দেওয়া ব্যক্তির অনধিক ৩ মাসের কারাদন্ড বা অনধিক ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড বা উভয় দন্ড হতে পারে।

অথচ দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের নাকের ডগায় এই গাড়িগুলো চললেও কোন ব্যবস্থা না নেওয়ার অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে। কোন রুটে কি গাড়ি চলবে তার সম্পর্কে ধারণাও নেই তাদের, এমনই জানালেন ১১ নম্বর রুটে চলাচলরত অটোটেম্পোর এক চালক। তিনি জানান, সমিতিকে প্রতিদিন ওয়াবিল দিতে হয়। আর রুট অমান্য করে অন্য রুটে গাড়ি চালাতে গেলে পুলিশ ও নেতাকে ম্যানেজ করা লাগে। যা একেক রুটে একেক রকম। রুট পারমিট নেই এমন গাড়ির মালিকরা জানিয়েছেন, রবিন মোটর্স এর কর্ণধার ইমাম উদ্দিন ইমন কে টাকা দিলেই অবৈধ রুট বৈধ হয়ে যায়। টাকা না দিলে সন্ত্রাসী দিয়ে আটকে দেয়া হয় গাড়ি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক অটোটেম্পো মালিক জানান, গাড়ি প্রতি ৩ হাজার টাকা না দিলে এই রুটে গাড়ি চালানো যাবে না বলে হুমকি দেন ইমন। শুধু তাই নয়, চাঁদা দিতে অনেকটা বাধ্যও করছেন তিনি। আমরা এ চাঁদাবাজি থেকে মুক্তি চাই।

সূত্র অনুযায়ী,নগরীর ১১ নম্বর রুটের রুট পারমিট বিহীন অটোটেম্পো গুলোর নম্বর হলো চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৯২৯, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৯৩৪, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২২৩৭, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২২৯৮, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৭৮২, চট্টমেট্রো-ফ-১১-৩০০৪, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২২৮১, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২০১৮, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৬২২, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৬২৩, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৫৮১, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৫৮০, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৯২১, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২১৮১, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৩৪২, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৩৪১, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৫৫৩, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২২৮৩, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৫৯৭, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৬১৯, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৮৪৫, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২১৭১, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২১৭২, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৯৩৮, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৯৩৯, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৬৭৭, চট্টমেট্রো-ফ-১১-০১৮৯, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২২৬২, চট্টমেট্রো-ফ-১১-১৭৫৫, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২১৭৫,চট্টমেট্রো-ফ-১১-২১৭৩, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৮২০, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৭১৯, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৮৫২, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৮৭০, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২০৯৪, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৫৫১, চট্টমেট্রো-ফ-১১-২৫৪৯।

এইসব গাড়ি গুলো চট্টগ্রাম সীতাকুণ্ড টেম্পো মালিক সমিতির (রেজি নং চট্ট ১৪২৬/৮৯) ও চট্টগ্রাম অটারিক্শা অটোটেম্পু ফোরস্টোক ও সিএনজি মালিক সমিতি (রেজি:২২৩০) এই দুই সংগঠনের নামে। যদির ইমনের হুংকারে বর্তমানে ২২৩০ সংগঠনের কোন গাড়ি রাস্তায় চলতে দেয়না ট্রাফিক পুলিশ।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম সীতাকুণ্ড টেম্পো মালিক সমিতির (রেজি নং চট্ট ১৪২৬/৮৯) যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও রবিন মোটর্স এর কর্ণধার ইমাম উদ্দিন ইমন প্রথমে রুট পারমিট আছে দাবি করলেও রুট নম্বর, গাড়ির সিলিং (সংখ্যা) ও স্টপেজ জানতে চাইলে রুট পারমিট নেই স্বীকার করে বলেন, তাঁর ২৬ টা গাড়ির রুট পারমিট নেই। ট্রাফিক পুলিশের টি আই দের মাসিক মাসহারা দিয়েই তাঁরা গাড়ি চালান। তবে মাঝেমধ্যে পুলিশ মামলা দেয়, আটকও করে। এদিকে চাঁদাবাজির অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, আমরা সরকারি সিদ্ধান্তের বাইরে চলি না।

তবে তার ভিজিটিং কার্ডকে ‘টোকেন’ হিসেবে ব্যাবহার করার বিষয়টি স্বীকার করে তিনি বলেন,আমার দোকান আছে, গ্রাহক হিসেবে অনেক কে কার্ড দেই। এখন তারা যদি এটাকে অবৈধ কোন কাজে ব্যবহার করে সেটাতে আমি কি করবো?

জানতে চাইলে সিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথ বলেন, সম্প্রতি নগরীর ১১ নম্বর রুট নিয়ে আমাদের কাছে কিছু অভিযোগ এসেছে। আমরা বিষয়টি দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিব।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর