1. admanu3@gmail.com : admanu :
  2. arnasir81@gmail.com : আব্দুর রহমান নাসির - বিশেষ প্রতিবেদক : আব্দুর রহমান নাসির - বিশেষ প্রতিবেদক
  3. nrad2007@gmail.com : এডমিন পেনেল : এডমিন পেনেল
  4. kawsarkayes@gmail.com : মোঃ আবু কাউসার - বিশেষ প্রতিবেদক : মোঃ আবু কাউসার - বিশেষ প্রতিবেদক
  5. ad@gil.com : মোহাম্মদ আবু দারদা সহ-সম্পাদক : মোহাম্মদ আবু দারদা সহ-সম্পাদক
  6. mrahman192618@gmail.com : মশিউর রহমান খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় : মশিউর রহমান খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়
  7. rafiqpress07@gmail.com : সম্পাদক ও প্রকাশক - এম.রফিকুল ইসলাম : সম্পাদক ও প্রকাশক - এম.রফিকুল ইসলাম
  8. asmarimi85@gmail.com : আসমা আক্তার রিমি সহ-সম্পাদক : আসমা আক্তার রিমি সহ-সম্পাদক
অপরাধ চক্রের অপরাধ নামা - দৈনিক প্রথম সংবাদ
সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০:১৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
চবি’তে ভর্তি পরীক্ষা হবে সরাসরি-সশরীরে বঙ্গবন্ধু অসাম্প্রদায়িক চেতনার মূর্ত প্রতীক: ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী কিশোরগঞ্জে পূজামণ্ডপ পরিদর্শনে ইউপি চেয়ারম্যান চুনারুঘাট ইউএনও’র সাথে অনলাইন প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের মতবিনিময় ডিসেম্বর পর্যন্ত এনজিওর ঋণের কিস্তি আদায় স্থগিত – জেলা প্রশাসক রাজাপুরে ইউপি নির্বাচনের চেয়ারম্যান প্রার্থীর পূজামণ্ডপ পরিদর্শন মণিরামপুরে মামা কর্তৃক আপন ভাগ্নিকে ধর্ষণের অভিযোগ চরফ্যাশনে সাংবাদিকদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর সহায়তার চেক বিতরণ করের হাট ইউনিয়ন আ’লীগের উদ্যোগে পূঁজামণ্ডপ পরিদর্শণ রূপগঞ্জে পূজামণ্ডপের পাশে বিশৃঙ্খলার অভিযোগে আটক ১

অপরাধ চক্রের অপরাধ নামা

প্রথম সংবাদ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৬৬ বার পড়া হয়েছে

মেহেদী হাসান

একজনের হাতে টেলিভিশনের মাইক্রোফোন অপরজনের কাধে ভিডিও ক্যামেরা, আর তাদের গলায় রয়েছে প্রেস ফিতা-আইডি কার্ড। সকাল থেকেই ছুটে চলা অবিরাম। কখনো জনপ্রতিনিধিদের সাক্ষাৎকার এনে এক দুই হাজার টাকা নেয়া, আবার কখনো কোন আবাসিক হোটেলে গিয়ে সাংবাদিকতার পরিচয় দিয়ে ফায়দালোটা। এভাবে নানাভাবেই চলে তাদের সাংবাদিকতা। কেউ এসএসসি পাশ আবার কেউ এইচএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য। তবে ট্রেইনি রিপোর্টার হিসেবেই তাদের নামিয়ে দিয়েছেন একটি প্রতারক চক্র। মাঠ পর্যায়ে নিউজ কভারেজ করে টাকা ইনকাম করে অফিসে দিলেই সেই নিউজ অনলাইন ও সাপ্তাহিক পত্রিকায় ছাপানোর আশ্বাস দিয়ে আসছে এই প্রতারক চক্রটি। এছাড়াও সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরির পাইয়ে দেয়ার কথা বলেও চলে তাদের নানা অপকর্ম। এমনই এক তথ্যের ভিত্তিতে মঙ্গলবার দুপুরে র্যা ব-৩ অভিযান চালায় নিউজ টুয়েন্টি ওয়ান নামের একটি অনলাইন টেলিভিশন অফিসে। সেখানে র্যা বের অভিযানে একের পর এক বেড় হতে থাকে চাঞ্চল্যকর নানা তথ্য। বিভিন্ন মানুষকে চাকরি পাইয়ে দেয়ার নাম করে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে নিউজ টুয়েন্টি ওয়ানের মালিক শহিদুল ইসলাম। অভিযানে সেখানে বেশ কিছু নথিপত্রও পায় র্যা ব। তবে অভিযানে র্যা ব জানতে পারে শহিদুলের প্রধান ঘাটি পল্টন এলাকায়। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল দুপুর ২টার দিকে শহিদুলকে নিয়ে র্যা ব অভিযান চালায় পল্টন থানা এলাকার ৫০/১ ভবনের ৮ম তলার সাপ্তাহিক অপরাধ চক্রের কার্যালয়ে। অভিযানটির নেতৃত্ব দেয় র্যা বের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু।
জানা গেছে, এই চক্রটি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের নাম এবং সরকারের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের সীল ব্যবহার করে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করে আসছিল। অভিযানে র্যা ব, শহিদুল ইসলাম ও আমেনা খাতুন নামের ২জনকে আটক করে। র্যা ব জানায়, তাদের প্রতারণামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা অবস্থায় র্যা ব হাতেনাতে আটক করে। অভিযানে তাদের অফিস তল্লাসি করে বিভিন্ন নামীয় উপ-সচিব, যুগ্ম-সচিবসহ সরকারের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের জাল সীল, জাল পুলিশ ক্লিয়ারেন্স ৮২টি, চাকরির ভুয়া বিজ্ঞাপন এবং বিভিন্ন ভুয়া নথিপত্র উদ্ধার করে র্যা ব-৩।
এবি চ্যানেল নামের অনলাইনে কর্মরত প্রতারণার শিকার নোয়াখালীর রিয়া (১৮)জানান, ফেসবুকের মাধ্যমে জাহাঙ্গীর (২৫) নামের এক যুবকের সাথে পরিচয় হয় রিয়ার। তার মাধ্যমেই পল্টনে সাপ্তাহিক অপরাধ চক্র ও এবি চ্যানেল নামের অনলাইন টিভিতে যোগদান করেন তিনি। অফিসেই তাকে ২৪ ঘন্টা রাখা হয়েছিল। মাঝে মধ্যে তাকে পাঠানো হত বিভিন্ন জনপ্রতিনিধিদের কাছে উন্নয়নের বক্তব্য আনতে। রিয়া জানায় মিডিয়াতে নিজেকে গড়ে তোলা এক স্বপ্ন ছিল। আর সেই স্বপ্ন পুরন করতে রিয়া তার মায়ের গহনা বিক্রি করে এই প্রতিষ্ঠানে দিয়েছে ৬০হাজার টাকা। ৬মাসের মত কাজ করলেও রিয়া পায়নি কোন পারিশ্রমিক। তবে অফিসেই ছিল তাদের থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা। রিয়া এইচএসসি পরিক্ষায় অকৃতকার্য।
প্রতারণার শিকার টাঙ্গাইল থেকে আসা নিশি (১৯) বলেন, তিনি একটি পার্লারে কাজ করতেন। ৩মাস হল তিনি এই প্রতিষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন। তার কাজ ছিল বিভিন্ন নিউজে ভয়েজ দেয়া। পাশাপাশি বিভিন্ন সময়ে ক্যামেরা নিয়ে বাইরে যাওয়া। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি পাশ।
এদিকে সাপ্তাহিক অপরাধ চক্রের প্রকাশক ও সম্পাদক পরিচয়দানকারী আমেনা বলেন, তিনি এই প্রতিষ্ঠানে কোন অপকর্ম করেননি। আর্থিক অভাব থাকায় কাউকে (সাংবাদিক) বেতনভুক্ত রাখা সম্ভব হয়নি। তাই সকলকে শিক্ষানবিশ হিসেবে কাজে লাগিয়েছেন। চাকরির নামে অর্থ আদায়ের বিষয়ে তিনি বলেন, তিনি কারো কাছে টাকা নেননি। তবে তার প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী সম্পাদক এই অপকর্ম করেছেন বলে জানতে পেরেছেন।
পল্টনের অফিসটি প্রতিমাসে ৩৩হাজার টাকা ভাড়া ও স্টাফ খরচ ২০হাজার টাকা। তার দেয়া এই তথ্যমতে কিভাবে এই খরচ বহন করেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার প্রতিষ্ঠানের সাংবাদিকরা নিউজ দিতে টাকা নিয়ে আসে ও কিছু বিজ্ঞাপন পান তাই দিয়ে খরচ চালানো হত। তবে বিজ্ঞাপনের হিসাব বা আয়ের কোন বৈধ হিসাব তিনি দেখাতে পারেননি।
এদিকে প্রতারক সহিদুল ইসলাম বলেন, আমি অন্যায় করছি তাই এখন এর প্রাশ্চিত্ত করছি।

এবি চ্যানেল নামের অনলাইনে কর্মরত প্রতারণার শিকার নোয়াখালীর রিয়া (১৮)জানান, ফেসবুকের মাধ্যমে জাহাঙ্গীর (২৫) নামের এক যুবকের সাথে পরিচয় হয় রিয়ার। তার মাধ্যমেই পল্টনে সাপ্তাহিক অপরাধ চক্র ও এবি চ্যানেল নামের অনলাইন টিভিতে যোগদান করেন তিনি। অফিসেই তাকে ২৪ ঘন্টা রাখা হয়েছিল। মাঝে মধ্যে তাকে পাঠানো হত বিভিন্ন জনপ্রতিনিধিদের কাছে উন্নয়নের বক্তব্য আনতে। রিয়া জানায় মিডিয়াতে নিজেকে গড়ে তোলা এক স্বপ্ন ছিল। আর সেই স্বপ্ন পুরন করতে রিয়া তার মায়ের গহনা বিক্রি করে এই প্রতিষ্ঠানে দিয়েছে ৬০হাজার টাকা। ৬মাসের মত কাজ করলেও রিয়া পায়নি কোন পারিশ্রমিক। তবে অফিসেই ছিল তাদের থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা।
প্রতারণার শিকার টাঙ্গাইল থেকে আসা নিশি (১৯) বলেন, তিনি একটি পার্লারে কাজ করতেন। ৩মাস হল তিনি এই প্রতিষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন। তার কাজ ছিল বিভিন্ন নিউজে ভয়েজ দেয়া। পাশাপাশি বিভিন্ন সময়ে ক্যামেরা নিয়ে বাইরে যাওয়া।
এদিকে সাপ্তাহিক অপরাধ চক্রের প্রকাশক ও সম্পাদক পরিচয়দানকারী আমেনা বলেন, তিনি এই প্রতিষ্ঠানে কোন অপকর্ম করেননি। আর্থিক অভাব থাকায় কাউকে (সাংবাদিক) বেতনভুক্ত রাখা সম্ভব হয়নি। তাই সকলকে শিক্ষানবিশ হিসেবে কাজে লাগিয়েছেন। চাকরির নামে অর্থ আদায়ের বিষয়ে তিনি বলেন, তিনি কারো কাছে টাকা নেননি। তবে তার প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী সম্পাদক এই অপকর্ম করেছেন বলে জানতে পেরেছেন।
পল্টনের অফিসটি প্রতিমাসে ৩৩হাজার টাকা ভাড়া ও স্টাফ খরচ ২০হাজার টাকা। তার দেয়া এই তথ্যমতে কিভাবে এই খরচ বহন করেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার প্রতিষ্ঠানের সাংবাদিকরা নিউজ দিতে টাকা নিয়ে আসে ও কিছু বিজ্ঞাপন পান তাই দিয়ে খরচ চালানো হত। তবে বিজ্ঞাপনের হিসাব বা আয়ের কোন বৈধ হিসাব তিনি দেখাতে পারেননি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর