মাঠে নেমেই হাসারাঙ্গার ঘূর্ণিজাদু, জয় ভাইপার্সের

:৩ উইকেটে ১০৩ রান, ১৪তম ওভারে আবুধাবি নাইট রাইডার্সের স্কোর, ভালোই বলা চলে। কিন্তু ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা আইএল টি-টোয়েন্টিতে তার প্রথম ম্যাচ রাঙিয়ে দিলেন এবং তাতে হাসলো ডেজার্ট ভাইপার্স। ৪ ওভারে ১ মেডেনসহ ১৮ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরাও হয়েছেন হাসারাঙ্গা, দল জিতেছে ৭ উইকেটে।

আগে ব্যাট করতে নেমে গুস অ্যাটকিনসন ও শেল্ডন কট্রেলের পেসে আবুধাবির তৃতীয় ওভারে নেই ১৫ রানে ২ উইকেট। কেনার লুইস (১) ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভা (৫) বিদায় নেওয়ার পর ব্র্যান্ডন কিং ও কলিন ইনগ্রাম প্রতিরোধ গড়লেও জুটি বড় হলো না। ইনগ্রামকে (১৫) ফিরিয়ে ৩৯ রানে তাদের বিচ্ছিন্ন করেন রোহান মুস্তফা।

কিংকে এরপর উপযুক্ত সঙ্গ দিলেন চারিথ আসালানকা। তবে পঞ্চাশ করতে পারেনি তাদের জুটি। বাধ সাধেন হাসারাঙ্গা। ওই ওভারে চারিথ (২৬) ও আন্দ্রে রাসেলকে (০) গোল্ডেন ডাকের লজ্জা দেন লঙ্কান স্পিনার। পরের ওভারে প্রথম বলেই সুনীল নারিনকে ফেরান হাসারাঙ্গা।

একার লড়াইয়ে হাফ সেঞ্চুরি করেন কিং। শেষ ওভারের প্রথম বলে তাকে ফেরান অ্যাটকিনসন, ৪৪ বলে ৫ চার ও ২ ছয়ে ৫৭ রান করেন তিনি। শেষ বলে মাতিউল্লাহ খান (২) রান আউট। আকিল হোসেন অপরাজিত ছিলেন ১২ রানে। ৮ উইকেটে ১৩৩ রান করে আবুধাবি।

হাসারাঙ্গা সর্বোচ্চ তিনটি এবং অ্যাটকিনসন দুটি উইকেট নেন।

ছোট লক্ষ্যে নেমে প্রথম ম্যাচের জয়ের নায়ক অ্যালেক্স হেলস টানা দ্বিতীয় হাফ সেঞ্চুরি করেন। রোহানের সঙ্গে তিনি ৩৯ রানের জুটি গড়ার পর তিন রানের ব্যবধানে কলিন মুনরো বিদায় নেন। এরপর স্যাম বিলিংসকে নিয়ে হেলস জয়ের ভিত গড়ে দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। লক্ষ্য থেকে ১৮ রান দূরে থাকতে থামেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান, ৪৭ বলে ৭ চার ও ১ ছয়ে করেন ৬৪ রান। বিলিংস ৩৫ ও শেরফানে রাদারফোর্ড ১১ রানে অপরাজিত থেকে ১৬তম ওভারে জয় তুলে নেন। ১৫.৪ ওভারে ডেজার্ট ভাইপার্সের স্কোর ৩ উইকেটে ১৩৫।

টানা দুই জয়ে চার পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে ডেজার্ট ভাইপার্স। সমান পয়েন্ট পেয়েও রানরেটের ব্যবধানে তাদের উপরে ও নিচে এমআই এমিরেটস ও গালফ জায়ান্টস।

#প্রথম সংবাদ

- Advertisement -

সর্বশেষ সংবাদ