কুলিয়ারচরে আ.লীগ নেতাসহ ৫ জনের রহস্যজনক মৃত্যু

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে এ্যালকোহল জাতীয় পানীয় সেবনে ৩ আওয়ামী লীগ নেতার মধ্যে ২জনসহ ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। অপর আওয়ামীলীগ নেতা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে আছে। এছাড়া আওয়ামী লীগ নেতাদের গাড়ি চালক, এক চিকিৎসক ও উপজেলা আওয়ামীলীগের অফিসের সামনের এক চা এর দোকানদারের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এলাকায়। নানান গুঞ্জন শুনা যাচ্ছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কুলিয়ারচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক-১ মো. গিয়াস উদ্দিন (৫৫), সাংগঠনিক সম্পাদক-২ মো. জহির রায়হান জজ (৫৫) এবং সদস্য ও কুলিয়ারচর পৌরসভার প্যানেল মেয়র মো. হাবিবুর রহমান (৫৫), তাদের গাড়ির চালক মো. শাহজাহান (৫২) ও কুলিয়ারচর বাজারস্থ অন্তর হোমিও হলের সত্ত্বাধিকারী ডা. গোবিন্দ চন্দ্র বিশ্বাস (৫০) এবং উপজেলা আওয়ামীলীগ অফিসের সামনের চা এর দোকানদার লিটন মিয়া (৪৫) এ্যালকোলহ জাতীয় পানীয় সেবনের পর অসুস্থ হয়ে পরে। পরে সোমবার (১৬ জানুয়ারি) ভোর ৪টা ঘটিকার সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক-২ মো জহির রায়হান জজ ও ভোর ৪টা ৩৫ মিনিটের সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক-১ মো. গিয়াস উদ্দিন ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে মারা য়ায়। ওইদিন সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে ডা. গোবিন্দ চন্দ্র বিশ্বাস ও বিকেল ৫.১০ ঘটিকায় লিটন মিয়া ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে মারা যায়। এর আগে গত ১৪ জানুয়ারি শনিবার রাতে মৃত গিয়াস উদ্দিন ও জহির রায়হান জজ এর গাড়ীর চালক মো. শাহজাহান মিয়া তার নিজ বাড়িতে মারা যায়। এছাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও পৌরসভার প্যানেল মেয়র মো. হাবিবুর রহমান ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

তবে ডা. গোবিন্দ চন্দ্র বিশ্বাসের ছোট ভাই কুলিয়ারচর গ্লোরিয়াস হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক আনন্দ চন্দ্র বিশ্বাস (৪৮) বলেন, তার বড় ভাই দীর্ঘ দিন যাবৎ পারিবারিক ভাবে দুঃশ্চিন্তায় ভোগছিলেন। এসব দুঃশ্চিন্তা থেকে স্টোক করে তিনি মারা গেছেন।

স্থানীয়রা জানান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক-১ মো. গিয়াস উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক-২ মো. জহির রায়হান জজ ও সদস্য মো. হাবিবুর রহমান পরস্পর ভাল বন্ধু ছিলেন। তাঁদের ছাত্র রাজনীতি দিয়ে এক সাথে পথ চলা। দলীয় কর্মকান্ডসহ সালিশ দরবারও করতেন একসাথেই। এদের মধ্যে দুইজন চলে গেলেন একসাথে। বন্ধুত্বের বন্ধনে থেকে গেলেন মৃত্যু কালেও। আর একজন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে লাইফ সাপোর্টে।
মৃত্যুর সঠিক কারন জানা না গেলেও এসব মৃত্যু নিয়ে এলাকায় নানান গুঞ্জন দেখে দিয়েছে।
এব্যাপারে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা ৪জনের মৃত্যু ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, এ্যালকোলহ জাতীয় পদার্থ সেবনে তাদের মৃত্যু হতে পারে। একজন লাইফ সাপোর্টে আছেন। তদন্ত চলছে। ময়না তদন্তের পর মৃত্যু কারন জানা যাবে।

#প্রথম সংবাদ

- Advertisement -

সর্বশেষ সংবাদ