কুলিয়ারচরে শিশু নির্যাতনের চেষ্টার অভিযোগে আটক ১

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার দড়িগাঁও গ্রামের ছয় বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে মোঃ নাঈম মিয়া (২৭) নামে এক যুবককে ধরে উত্তম মাধ্যম দিয়ে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় জনতা। আটককৃত মোঃ নাঈম মিয়া উপজেলার সালুয়া ইউনিয়নে দড়িগাঁও গ্রামের মোঃ সেলিম মিয়ার ছেলে।

বুধবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে স্থানীয় জনতা মোঃ নাঈম মিয়া (২৭) নামের এই যুবককে আটক করে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানা যায়, গত সোমবার( ৯ জানুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে উপজেলার সালুয়া ইউনিয়নের দড়িগাঁও গ্রামের এক সিএনজি চালকের কন্যা স্থানীয় জামাতুল কোরআন গার্ডেন মাদ্রাসার শিশু শ্রেণির ছাত্রী। সে বাড়ির আঙ্গিনায় খেলা করছিলো, এসময় পার্শ্ববর্তী বাড়ির মোঃ সেলিম মিয়ার ছেলে নাঈম মিয়া চকলেট দেওয়ার লোভ দেখিয়ে শিশুটিকে তাদের বসত ঘরে নিয়ে দরজা বন্ধ করে চৌকিতে ফেলে পড়নের পোশাক খুলে জোরপূর্বক ধর্শনের চেষ্টা করে। এ সময় শিশুটির চিৎকারের শব্দ শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে লম্পট নাঈম মিয়া শিশুটিকে ঘরে একা ফেলে দৌড়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনার পরে শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়লে ঘটনার পরদিন শিশুটিকে কুলিয়ারচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কিশোরগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরন করেন।

এ ঘটনার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে বুধবার (১১জানুয়ারি) দুপুরের দিকে স্থানীয় জনতা উত্তেজিত হয়ে, লম্পট মোঃ নাঈম মিয়াকে ধরে উত্তম মাধ্যম দিয়ে কুলিয়ারচর থানা পুলিশে সোপর্দ করেন। এই ঘটনায় বুধবার (১১জানুয়ারি) দুপুর সোয়া ১টার দিকে শিশুটির পিতা বাদী হয়ে মোঃ নাঈম মিয়াকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(৪)খ ধারায় কুলিয়ারচর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং- ০৭।

এ প্রসঙ্গে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা সাংবাদিকদের জানান, ছয় বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। অভিযুক্ত নাঈম মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

#প্রথম সংবাদ

- Advertisement -

সর্বশেষ সংবাদ