অপসংস্কৃতি পরিহারের আহ্বানে দীঘিনালায় প্রদীপ প্রজ্জ্বলন

“অপসংস্কৃতি পরিহার করুন, নিজ সংস্কৃতি চর্চার মনোযোগী হোন, পাহাড়ের সকল অপশক্তির বিরুদ্ধে সোচ্চার হোন” এই আহ্বানে দীঘিনালায় প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করেছে সামাজিক অবক্ষয় প্রতিরোধ কমিটি।

আজ ৩১ ডিসেম্বর ২০২২, শনিবার সন্ধ্যায় এই প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করা হয়। এতে এলাকার নারী-পুরুষ ও শিশু-কিশোররা অংশগ্রহণ করেন।

প্রদীপ প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠান আর্যপ্রিয় চাকমার সভাপতিত্বে ও নবীন বিকাশ চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন ৪নং দীঘিনালা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার নন্দ প্রিয় চাকমা, যুব নেতা জ্ঞান প্রসাদ চাকমা ও টত্তু মনি চাকমা।

বক্তরা বলেন, আধুনিকতার দোহাই বর্তমানে থার্টি ফার্স্ট নাইট পালনের নামে ছাত্র-যুব সমাজ মদ্যপানে আসক্ত হচ্ছে। স্কুলে পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী, গ্রামের যুব সমাজ এবং উঠতি নারী সমাজ এই দিনে রাতে সাউন্ড বক্স বাজিয়ে মাদকদ্রব্য সেবন করে বিভিন্ন অশ্রীল নাচ ও গান করে থাকে। এলাকায় ছোট শিশুদের পর্যন্ত গ্রামের মাঠ-ঘাটে জড়ো হয়ে সিগারেট, মদ খেতে দেখা যায়। অনেক মেয়ে মদ ও সিগারেট খেয়ে ফেসবুকে অশ্রীল ছবি পোস্ট করে থাকে। এই ধরনের চর্চা সামাজিক শৃঙ্খলার জন্য হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। আমাদের সবাইকে এসব অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে। থার্টি ফাস্ট নাইটের নামে যাতে সামাজিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

বক্তারা আরো বলেন, থার্টি ফাস্ট নাইট আমাদের জুম্মদের কোন জাতীয় সংস্কৃতি নয়। তাই সকলের উচিত বিদেশী সংস্কৃতিকে পরিহার করে নিজ নিজ জাতীয় সংস্কৃতি চর্চার দিকে মনোযোগ দেওয়া। আধুনিকতার দোহাই দিয়ে মাদক সেবন করে সামাজিক অবক্ষয়মুলক কর্মকাণ্ড কখনো উন্নত সমাজ ও জাতি গঠনে সহায়ক হতে পারে না।

বক্তারা ছাত্র-যুব সমাজসহ সকলকে অপসংস্কৃতি চর্চা থেকে বিরত থেকে উন্নত ও রুচিশীল সংস্কৃতি চর্চার আহ্বান জানান।

#প্রথম সংবাদ

- Advertisement -

সর্বশেষ সংবাদ