‘শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক উন্নতিতে অবদান রাখবে এলপিএল’

সাম্প্রতিককালে অর্থনৈতিক দুরবস্থা ও রাজনৈতিক অস্থিরতায় কঠিন সময়ের মধ্যে গিয়েছে শ্রীলংকা। ধীরে ধীরে সেই ধাক্কা কাটিয়ে উঠার চেষ্টা করছে দেশটি। সেই যাত্রায় গুরত্বপূর্ণ সংযোজন হতে যাচ্ছে লংকান প্রিমিয়ার লিগ, মনে করেন দেশটির তারকা ক্রিকেটার থিসারা পেরেরা। লংকান প্রিমিয়ার লিগের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন জাফনা কিংসের অধিনায়ক থিসারা পেরেরা। পেরেরার মতে লংকান লিগের চলমান তৃতীয় আসর শ্রীলংকার অর্থনীতি ও ভ্রমণ পিপাসুদের উতসাহিত করবে।

২০২২ সালের এলপিএল শুরুতে আগষ্টে হওয়ার কথা ছিল। কিন্ত অর্থনৈতিক দুর্যোগে সেটি গত মাসে স্থগিত করতে হয়। থিসারা পেরেরা বলেন, ‘শ্রীলংকা সবসময়ই ক্রিকেটীয় ঐতিহ্য ও আবেগের জন্য গর্ব করে এসেছে। দেশের অর্থনীতিতে স্থিতিশীলতা ফেরাতে ও আন্তর্জাতিক ভ্রমণ বাড়াতে এই লিগ উন্নতি সাধকের ভূমিকা নিয়ে আসবে।’

পেরেরা আরও বলেন, ‘প্রতিদিনই বড় একটা সংখ্যার দর্শক স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে আসছেন, যা খেলাটার প্রতি তাদের ভালোবাসারই প্রমাণ দেয়। আমরা আমাদের সর্বোচ্চ দেওয়ার চেষ্টা করছি, যাতে সেই দর্শকেরা উপভোগ্য সময় কাটিয়ে হাসিমুখে ঘরে ফিরতে পারে।’

শ্রীলংকায় এলপিএলের প্রভাব নিয়ে কথা বলেন অনিল মোহন, এলপিএলের প্রচারণার সঙ্গে জড়িত আইপিজি গ্রুপের চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর। অনিল বলেন, ‘আমরা শ্রীলংকার সর্বোচ্চ প্রচারণা চাই এবং দেশটির অর্থনীতিতেও ভালোভাবে প্রভাব রাখতে চাই। আমি আত্মবিশ্বাসী লিগটি শ্রীলংকায় বিদেশি ভ্রমণ বাড়াতেও সাহায্য করবে। আমি দুর্দান্ত একটি এলপিএল টুর্নামেন্ট দেখতে মুখিয়ে আছি, যেটি প্রত্যাশা অনুযায়ী দেশ ও বিদেশের দর্শকের আকর্ষণ আদায় করে নিতে সক্ষম হবে।’

নতুন প্রতিভার সন্ধানে কীভাবে লিগটি সাহায্য করে তা নিয়েও থিসারা পেরেরা বলেন, ‘শ্রীলংকান তরুণ ক্রিকেটারদেরকে বিশ্বমঞ্চে নিজেদের দক্ষতা ও প্রতিভা দেখানোর সুযোগ করে দিয়েছে এলপিএল। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখার আগেই লিগটি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের কিছুটা স্বাদ দিবে তরুণ ক্রিকেটারদের। আমি নিশ্চিত আমরা দারুণ কিছু ক্রিকেটারদের শ্রীলংকান জার্সিতে সামনে দেখতে পাব।’

#প্রথম সংবাদ

- Advertisement -

সর্বশেষ সংবাদ