কুলিয়ারচরে বেগম রোকেয়া দিবস ও আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ উদযাপিত

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে বেগম রোকেয়া দিবস ও আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ-২০২২ উদযাপিত হয়েছে।

এ উপলক্ষ্যে “সবার মাঝে ঐক্য গড়ি, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করি” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে গত ৯ ডিসেম্বর শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের যৌথ উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ও বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে উপজেলার পাঁচ জয়িতাকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া ইসলাম লুনা’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মালা বড়াল।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ নূরে আলম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. আলতাফ হোসেন, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. রফিক উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মো. রফিকুল বাহার, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা অফিসের প্রশিক্ষক রুবিনা আরিফ, ফ্যাশন ডিজাইন প্রশিক্ষক আফরিন সুলতানা সহ প্রশিক্ষণার্থী। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার মুহাম্মদ মুশফিকুর রহমান।

অনুষ্ঠানে নারী জাগরণের পথিকৃৎ বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের স্মরণে পালিত আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও রোকেয়া দিবস ২০২২ উপলক্ষে সফল জননী, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যেমে জীবন শুরু করা, সমাজ উন্নয়নে অবদান রাখা, অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী এবং শিক্ষা ও চাকরির ক্ষেত্রে অবদান রাখা নারী ক্যাটাগরীতে সাফল্য অর্জন করা পাঁচ নারীকে জয়িতা হিসেবে ক্রেস্ট, সনদ ও শীতের শাল উপহার প্রদানের মাধ্যমে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

জয়িতা সম্মাননা অনুষ্ঠানে উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ জয়িতা সম্মাননায় ভূষিত হন জান্নাতুল মিশু।

শিক্ষার্থী হলেও মিশু স্বাবলম্বী হতে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছিলো শিক্ষকতাকে। করোনাকালে আর্থিক সংকটে পড়ে গেলে উই গ্রুপ থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে ‘নারী উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ী’ হিসেবে নিজের আরেকটি পরিচয় গড়ে তোলার প্রত্যয়ে তার এগিয়ে চলা।

উত্থান-পতনের নানা সময় পার করে আজো সে টিকে আছে তার পরিবার নিয়ে। স্বপ্ন দেখে সকল জটিলতা সমাধান করে ইনশাআল্লাহ তার ব্যবসায় উদ্যোগ ‘মুনিয়াত’ একদিন অনেকের কর্মসংস্থানের মাধ্যম হবে৷ তার এই এগিয়ে চলায় কর্মস্পৃহা বাড়ালো এই জয়িতা সম্মাননা।
মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের সাম্প্রতিক উত্তম চর্চা সমূহের মধ্যে “জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ” শীর্ষক কার্যক্রম একটি। জয়িতা হচ্ছে সমাজের সকল বাঁধা বিপত্তি অতিক্রম করে বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফল নারীর একটি প্রতিকী নাম। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দিক নির্দেশনায় ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে প্রতিবছর আর্ন্তজাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ (২৫ নভেম্বর হতে ১০ ডিসেম্বর) এবং বেগম রোকেয়া দিবস (৯ ডিসেম্বর) উৎযাপন কালে দেশব্যাপী “জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ” শীর্ষক একটি কার্যক্রমের মাধ্যমে বিভিন্ন ক্ষেত্রে তৃণমূলের সফল নারী তথা জয়িতাদের অনুপ্রানিত করছে। এই কার্যক্রমের ফলে সমতাভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণ ত্বরান্বিত করবে।

এবার ২০২২ সালে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপজেলা কুলিয়ারচর হতে উপজেলা পর্যায়ে ‘অর্থনৈতিকভাবে অর্জনকারী নারী’ ক্যাটাগরিতে তাকে এই সম্মাননা দেয়ার জন্য সে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা পোষণ করছে।

#প্রথম সংবাদ

- Advertisement -

সর্বশেষ সংবাদ