মোরেলগঞ্জে সাংবাদিক সাইফুল কবিরের ওপর হামলা

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে এসএম সাইফুল ইসলাম কবির (৪৮) নামের এক সাংবাদিককে মারধর করেছে যুবলীগের নেতাকর্মীরা। শনিবার দুপুরে সাইনবোর্ড-বগি আঞ্চলিক মহাসড়কের মাঝিবাড়ি এলাকায় বিএনপির সমাবেশে যেতে বাঁধা দেওয়ার জন্য করা চেক পোস্টে দায়িত্বরত যুবলীগকর্মীরা এই হামলা করেন। এসময় এসএম সাইফুল ইসলাম কবিরের স্ত্রী সাথী ইসলাম, বড় ভাই আব্দুল রব ফকির ও অটো চালক অহিদুলকেও মারধর করে তারা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে পুলিশ লোহার রড ও লাঠি উদ্ধার করেছে। মারধরের শিকার দৈনিক অবজারভার পত্রিকার মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি ও মোরেলগঞ্জ প্রেসক্লাবের অর্থ ও দপ্তর সম্পাদক এসএম সাইফুল ইসলাম কবির এবং উপজেলার ভাইজোড়া এলাকার বাসিন্দা। সে মোরেলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন।

সাংবাদিক এসএম সাইফুল ইসলাম কবির বলেন, পারিবারিক কাজ সেরে অটোতে করে স্ত্রী ও বড় ভাইকে নিয়ে মোংলা থেকে ফিরছিলাম। পথিমধ্যে মাঝিবাড়ি এলাকায় পৌছালে নিশানবাড়িয়া ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সাব্বির হোসেন সুমনের নেতৃত্বে আমাদের অটো আটকে দেওয়া হয়। সাংবাদিক পরিচয় দেওয়ার পরেও সুমনসহ আরও কয়েকজন আমাকে মারধর করে। আমার স্ত্রী, আমার বড় ভাই ও অটো চালককেও মারধর করে তারা।

এসএম সাইফুল ইসলাম কবিরের স্ত্রী সাথী ইসলাম বলেন, আমরা কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই তারা আমাদের উপর হামলা করে। আমার স্বামীকে ওরা অটো থেকে টেনে বের করে নেওয়ার চেষ্টা করে। আমি অনেক কষ্টে ধরে রেখেছি। আমরাতো আওয়ামী পরিবার আমাদের কি দোষ, যে পথে ঘাটে মার খেতে হবে।মারধরের বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে যুবলীগ নেতা সাব্বির হোসেন সুমন বলেন, একটি ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। এজন্য আমি এবং চেকপোস্টে থাকা কয়েকজন সাংবাদিক সাইফুল ইসলামের কাছে ক্ষমাও চেয়েছি।

মোরেলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইদুর রহমান বলেন, একটা ঘটনা শুনেছি। অভিযোগ দিলে আমরা প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করব। #

#প্রথম সংবাদ

- Advertisement -

সর্বশেষ সংবাদ