আমিরাত ক্রিকেটের উন্নতির জন্য উদ্যোগ নিয়েছে আইএলটি-২০

২০২৩ সালের জানুয়ারির ১৩ তারিখ পর্দা উঠছে বহুল আকাঙ্ক্ষিত আইএল টি-টোয়েন্টির। দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুবাই ক্যাপিটালসের বিপক্ষে আবুধাবি নাইট রাইডার্সের ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে এই টুর্নামেন্ট। ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এই টুর্নামেন্টের মাধ্যমে আমিরাতের ক্রিকেটারদের উন্নতির জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

সেই লক্ষ্য আইএলটির ৬টি ফ্র্যাঞ্চাইজি দেশটির ২৪ জন খেলোয়াড় নিজেদের দলে নিয়েছে। প্রতিটি দল ৬ জন করে আমিরাতের ক্রিকেটার নিয়েছে। একাদশে সর্বনিম্ন দুইজন খেলোয়াড় রাখা বাধ্যতামূলক। শুক্রবার ৬টি ফ্র্যাঞ্চাইজি খেলোয়াড়দের নাম ঘোষণা করে।

এমিরেটস ক্রিকেটের সাধারণ সম্পাদক মুবাশ্বির উসমানি বলেছেন, ‘আজ একটি অত্যন্ত আনন্দের দিন। আরব আমিরাতের খেলোয়াড়দের উন্নয়নের ভিত্তির উপর নির্মিত আইএলটি। আমাদের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির সমর্থন এবং প্রতিশ্রুতির মাধ্যমে জানাচ্ছি আমিরাতের ২৪ জন ক্রিকেটারকে উন্নতির জন্য নেওয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে তার ক্যারিয়ারের নতুন দিগন্তে যাবে বলে প্রত্যাশা করি।’

১২ ফেব্রুয়ারি ফাইনালের মাধ্যমে পর্দা নামবে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক লিগের। ৩৪ ম্যাচের এই টুর্নামেন্টে দুবাইয়ের সঙ্গে ব্যবহার হবে শারজাহ ও আবুধাবি ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

মঈন আলি, কিরন পোলার্ড, শিমরন হেটমায়ারের মতো তারকারা অংশ নিচ্ছেন এই টুর্নামেন্ট। ছয় ফ্র্যাঞ্চাইজির সবাই একে-অন্যের মুখোমুখি হবেন দুবার করে। এরপর প্লে অফ ও ফাইনাল। ৮৪জন আন্তর্জাতিক তারকার সঙ্গে থাকবেন ২৪ জন আমিরাতের স্থানীয় ক্রিকেটার।

অংশ নেওয়া ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো হলো- আবুধাবি নাইট রাইডার্স, ডেসার্ট ভাইপার্স, দুবাই ক্যাপিটালস, গলফ জয়েন্টস, এমআই এমিরেটস, শারজাহ ওয়ারিয়র্স।

#প্রথম সংবাদ

- Advertisement -

সর্বশেষ সংবাদ