রবিবার, নভেম্বর ২৭, ২০২২
রবিবার, নভেম্বর ২৭, ২০২২

স্বাধীন বাংলায় শেখ হাসিনা ও তার ছাত্রলীগ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু যে স্বপ্ন নিয়ে ছাত্রলীগ সৃষ্টি করেছিলেন, বাঙালি জাতির ইতিহাসের প্রতিটি টার্নিং পয়েন্টে ছাত্রলীগ প্রমাণ করেছে পিতার আদর্শই তার চলার পথে মূল আলোকবর্তিকা, পিতার স্বপ্নই তার চলার পথে ধ্রুবতারা। পিতার নেতৃত্বে বাঙালির মুক্তি সংগ্রাম, স্বাধিকার আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, পরবর্তীতে স্বাধীন বাংলদেশে সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে গণতন্ত্রের সংগ্রামসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে ছাত্রলীগের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সদস্যের আত্মাহুতিসহ এই সংগঠনের যুগান্তকারী অবদান রয়েছে।
ছাত্রলীগের সাংগঠনিক অভিবাবক জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশে ছাত্রলীগ সারাদেশে কৃষকের জন্য ধান কাটতে শুরু করে, সে ধান তারা কাঁধে তুলে কৃষকের উঠানে পৌঁছে দিয়েছে। কৃষককে তার প্রয়োজন অনুযায়ী অন্যান্য সহায়তা করেছে। কোনো কোনো অঞ্চলে চিংড়ি চাষে সহায়তা করেছে, কোথাও আবার লবণ চাষেও সাহায্য করেছে। প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক ও সোশ্যাল মিডিয়ার বদৌলতে আমরা দেখেছি ছাত্রলীগ প্রতিদিন দেশের প্রতিটি জেলায়, প্রতিটি উপজেলায়, প্রতিটি গ্রামে কৃষকের জন্য স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে বিরামহীন ভাবে ধান কেটে গেছে। দেশের এই চরম ক্রান্তিকালে ধান ফলনের সময় ছাত্রলীগের এই ধানকাটা, ধান পরিবহন ও ধান মাড়াই কর্মসূচি নিঃসন্দেহে দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সাহায্য করেছে।
এছাড়া দেশের সর্বত্র করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের লক্ষ্যে ছাত্রলীগ বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের ল্যাবরোটারিগুলোতে শিক্ষকদের সহায়তায় নিজেরা হ্যান্ড স্যানিটাইজার প্রস্তুত করে সারাদেশে বিনামূল্যে বিতরণ করেছে। তারা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দসহ সমাজের অনেক মানবহিতৈষী ব্যক্তির কাছে থেকে সহায়তা নিয়ে অসহায় ও দরিদ্র মানুষের মাঝে ফেস মাস্ক, স্যানিটাইজার এবং হাত ধোয়ার জন্য সাবান বিতরণ করেছে। বাহ্যিকভাবে পেশাদার পরিচ্ছন্ন কর্মীর মতো, অথচ অন্তরে ভালোবাসার পরশ দিয়ে ছাত্রলীগের সদস্যরা এন্টি ভাইরাস স্প্রে হাতে ছুটে চলেছিল গ্রামের পর গ্রাম। নিজেরা খেয়েছে কি খায়নি- সেদিকে না তাকিয়ে তারা কর্মহীন ও অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য পৌঁছে দিয়েছে। এছাড়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনা সংকটের কারণে কর্মহীন, অসহায় ও নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য দেশব্যাপী হাজার হাজার কোটি টাকার সমমূল্যের যে খাদ্য সামগ্রী ও নগদ অর্থ পাঠাচ্ছেন, প্রধানমন্ত্রীর এই ত্রাণ কার্যক্রমেও ছাত্রলীগ সরকারি প্রশাসনকে সহায়তা করেছে।
নিজের মা করোনা আক্রান্ত হয়েছে- এই সন্দেহে অসুস্থ মা’কে যখন নিজের কুলাঙ্গার সন্তানরা জঙ্গলে রেখে আসে, তখন ছাত্রলীগ করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি ও তার পরিবারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে মানবতার মা শেখ হাসিনার নির্দেশ ও তারই অনুপ্রেরণায়। করোনা আতঙ্কের কারণে দেশের বিভিন্ন স্থানে যখন করোনা আক্রান্ত মৃত ব্যক্তির জানাজা ও দাফনের ক্ষেত্রে সমস্যা হচ্ছিল, অকুতোভয় ছাত্রলীগ তখন এগিয়ে আসলো জননেত্রী শেখ হাসিনারই অনুপ্রেরণায়। চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে করোনার ভয়ে মুক্তিযোদ্ধার লাশ দাফনে যখন কেও এগিয়ে এলো না, তখন এগিয়ে আসলো ছাত্রলীগ।
করোনা সংকটে ছাত্র-ছাত্রী ও নিম্ন আয়ের কর্মজীবীদের সহায়তার জন্য পাবনায় ছাত্রলীগের আবেদনের প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় সকল মেসের ভাড়া ৪০ শতাংশ মওকুফ করা হয়েছিল।
নিজের দেহ থেকে ‘প্লাজমা’ দিয়ে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জীবন বাঁচাতে ছাত্রলীগই প্রথম এগিয়ে আসলো। এই লক্ষ্যে দেশের বিভিন্ন স্থানে তারা প্লাজমা ব্যাংকের সদস্য হলো।
কুমিল্লার দেবিদ্বারে করোনা আক্রান্ত বিএনপি নেতার লাশ দাফন করতে তার আত্মীয় স্বজন ও নিজ দলের লোকজন যখন এগিয়ে আসলোনা, তখন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক এই ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাই বিএনপির নেতার জানাজা সহ তার দাফনের সকল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেছিল।
১৯৯৪ সালে বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়া যখন আওয়ামী লীগকে শায়েস্তা করার জন্য তার ছাত্রসংগঠন ছাত্রদলই যথেষ্ট বলে হুমকি দিয়েছিলেন, তখন জননেত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের হাতে কাগজ-কলম-বই তুলে দিয়েছিলেন। আর ২০২০-এ করোনা মহামারিতে মানবতার মা শেখ হাসিনা ছাত্রলীগকে বই-খাতা-কলম রেখে কৃষকের পাশে কাস্তে নিয়ে দাঁড়াতে বলেছেন আর কর্মহীন ও অসহায় মানুষের কাছে খাবার পৌঁছে দিতে বলেছেন।
জাতির পিতার নির্দেশে যে ছাত্রলীগ একদিন অস্ত্র হাতে জীবনের মায়া ত্যাগ করে দেশের স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল, দেশের স্বাধীনতার প্রায় পঞ্চাশ বছর পর তারই কন্যা রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নির্দেশে সেই ছাত্রলীগ মৃত্যুভয়কে জয় করে আরেকটি যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল।
তাছাড়া সাধারণ ছাত্র ছাত্রীদের সকল ধরনের সাহায্য সহযোগিতা থেকে শুরু করে সব বিপদে আপদে পাশে থেকে জননেত্রীর ছাত্রলীগ।
ছাত্রলীগ বাংলাদেশের ইতিহাসের এক অপার সম্ভাবনার নাম।
ভালোবাসার এই সংগঠন এর প্রতিটি ইউনিট এর কর্মীরা দেশরত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশে যেকোনো পরিস্থিতিতে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে বদ্ধপরিকর।

সর্বশেষ সংবাদ