বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যে আ. লীগের নেতাকর্মীরা ঝাঁপিয়ে পড়েছে

Link Copied!

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি বলেন, আপনারা জানেন যে, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বন্যা দেখা দিয়েছে। সেখানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে প্রশাসনের পাশাপাশি ঝাঁপিয়ে পড়েছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। কিন্তু অন্য কোন দলের নেতাকর্মীদের সখানে দেখা যাচ্ছে না। এরা শুধু সংসদে বক্তৃতা করছে, নয়াপল্টন এবং প্রেসক্লাবের সামনে দাঁড়িয়ে সরকারের বিরুদ্ধে বিষদাগার করছে। বন্যার্তদের সাহায্যে এগিয়ে আসতে তাদের দেখা যাচ্ছে না।

আজ তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি নিজ নির্বাচনী এলাকা রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার অ্যাডভোকেট নুরুচ্ছফা তালুকদার অডিটরিয়ামে উপজেলার স্কুল ও কলেজ শিক্ষকদেও সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে এসব কথা বলেন।

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী বলেন, এমনকি ২০১৭ সালে রাঙ্গুনিয়ায় যখন বন্যা হয়েছিল তখন পাহাড় ধ্বসে বারো তেরো জন মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। তখনও অন্য কোন দলের নেতা কর্মীদের দেখা যায়নি। আমি নিজেও মাটি কেটেছিলাম যেন আমাকে দেখে দলের নেতাকর্মীরা উৎসাহ পায়।
ছাত্রদের মনে মমত্ববোধ ও দেশাত্ববোধ জাগ্রত করার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে শিক্ষকদের প্রতি অনুরোধ জানান ড. হাছান মাহমুদ এমপি । বর্তমান সমাজে কার কত বেশি সম্পদ আর কত টাকার দামি গাড়ি আছে তা নিয়ে একটি অসুস্থ প্রতিযোগীতা সৃষ্টি হয়েছে। সমাজের এ অসুস্থ প্রতিযোগীতা থেকে সমাজকে রক্ষা করার ক্ষেত্রেও শিক্ষকদের বিশেষ ভূমিকা পালন করতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, শুধুমাত্র বস্তুগত উন্নয়নের মাধ্যমে একটা জাতির উন্নয়ন কখনো সম্ভব নয়। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা চায় শিক্ষকদের অকৃত্রিম সহযোগীতায় মেধা, মূল্যবোধ ও দেশাত্ববোধের সমন্বয়ে নতুন প্রজন্মকে গড়ে তুলতে। গত ১শত বছরে বহু উন্নয়ন হয়েছে কিন্তু মানবিকতা হারিয়ে গেছে।

মতবিনিময় সভায় মাস্টার আসলাম খান এর সভাপতিত্বে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মুহাম্মদ রফিকুল আলম, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান স্বজন কুমার তালুকদার, চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক ড. সেকান্দর চৌধুরী, রাঙ্গুনিয়া সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এ কে এম সুজা উদ্দিনসহ বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষকরা এসময় উপস্থিত ছিলেন।