জবির আন্তঃব্যাচ বির্তক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

Link Copied!

স্ট্যাটিসটিক্স ডিবেট ক্লাব,জবির উদ্যোগে
২য় আন্তঃব্যাচ বির্তক প্রতিযোগতা ২০২২ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ফাইনালে টিম অষ্টরম্ভা কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে টিম কোহর্ট। ফাইনালে
সরকার দলের পক্ষে টিম অষ্টরম্ভার হয়ে বিতর্ক করেন এস.এম নাদিম মাহমুদ, রিফাত চৌধুরী সজল, মাহমুদ তানজীদ এবং বিরোধী দল হিসেবে বিতর্ক করেন টিম কোহর্ট এর আব্দুল্লাহ আল ইয়াছির, হাফসা ইসলাম, নাঈম আহমেদ।

আজ বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) বেলা সাড়ে ১২টায় নতুন একাডেমিক ভবনের পরিসংখ্যান বিভাগে আন্তঃব্যাচ বিতর্কের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়।

এই বির্তকে অংশগ্রহণ করে বিভিন্ন ব্যাচের ৮টি দল। প্রতিটি দল ৩ জন সদস্য নিয়ে গঠিত হয়। দলগুলো হল টিম নেগোটিয়েটর, টিম আনবিটেবল, রিগ্রেশন অ্যানালাইজার, লিনিয়ার রিগ্রেশন, ডিসপার্সন মেজারস, টিম সিগমা, টিম কোহোর্ট, টিম অষ্টরম্ভা।

চমৎকার এই বির্তক প্রতিযোগিতার ১ম রাউন্ডে ৩ টি করে সনাতনী বিতর্ক প্রতিযোগিতায় ট্যাব ফরম্যাটে ও সেফিফাইনালে সংসদীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। সেমিফাইনালে লিনিয়ার রিগ্রেশন ও টিম কোহর্ট এবং রিগ্রেশন অ্যানালাইজার ও অষ্টরম্ভা দলের মধ্যে ফাইনাল উঠে টিম কোহর্ট এবং অষ্টরম্ভা দল।

বিতর্ক প্রতিযোগিতার বিষয়ে স্ট্যাটিসটিক্স ডিবেটিং ক্লাবের সভাপতি নুরুজ্জামান বলেন, মুক্ত চিন্তা ও জ্ঞান চার্চার মাধ্যমে গড়ে ওঠবে বুদ্ধিবৃত্তিক নতুন তরুন সমাজ। এমন মুক্ত চিন্তা,জ্ঞান চর্চার তরান্বিত করার লক্ষ্যে কাজ ২য় আন্তঃব্যাচ বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এই সুন্দর আয়োজনের সাথে যারাই বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করেছে সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা।

এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের উপদেষ্টা পরিসংখ্যান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শাহনাজ পারভীন, সহকারী অধ্যাপক শাহজাদী আইরিন।

ফাইনালে বিচারক প্যানেলে ছিলেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জনসংযোগ কর্মকর্তা ও সাবেক কৃতি বিতার্কিক হাসান মাহমুদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটি সাবেক সাধারণ সম্পাদক দ্বীন ইসলাম, ইসলামিক স্ট্যাডিজ ডিবেটিং ক্লাবের সভাপতি রাফিয়া রহমান, ডিবেটিং সোসাইটির সাংগঠনিক সম্পাদক তৌফিকুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক শারমিন সুলতানা নিশি এবং রেনেসাঁ ডিবেটিং ক্লাবের সেক্রেটারি সারোয়ার হোসাইন সোহান

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে স্ট্যাটিসটিক্স ডিবেটিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. ইউসুফ হোসেন আদর এর সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন ক্লাবের সভাপতি নুরুজ্জামান।

###