ত্রিশালে যুবলীগের বিক্ষোভ মিছিল

Link Copied!

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী ও গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী সফল রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলা যুবলীগ।
শনিবার দুপুরে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ত্রিশাল উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিলটি দলীয় কার্যালয় থেকে শুরু হয়ে পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কে এক বিক্ষোভ সমাবেশ করে।

উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম জুয়েল সরকারের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক সংসদ সদস্য, ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক, ত্রিশাল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন সরকার।

উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক গোলাম মোস্তফার পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আবুল কালাম, ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সদস্য ফজলে রাব্বী, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক মাহফুজুর রহমান পলাশ, উপজেলা যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক উজ্জল মন্ডল, পৌর যুবলীগের সাধারন সম্পাদক ফুয়াদ হাছান নিউটন, ত্রিশাল পৌরসভার ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও পৌর যুবলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক খালেদ মাহমুদ সুমন, উপজেলা যুবলীগের উপপ্রচার সম্পাদক মেহেদী হাছান রাসেল প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মতিন সরকার বলেন, বঙ্গবন্ধু ডাকে সাড়া দিয়ে ৭১ রনাঙ্গনে থেকে যুদ্ধ করেছি। দেশ স্বাধীন হওয়ার বঙ্গবন্ধু স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার কাজ করছিলেন তখন ষড়যন্ত্রকারীরা তাকে হত্যা করে। সেদিন প্রতিবাদ করতে গিয়ে জেল খেটেছিলাম বাড়ির বাহিরে পালিয়ে ছিলাম দীর্ঘদিন। ২০০৪ সালে রাট্রনায়ক শেখ হানিার হত্যার ষড়যন্ত্র রাজপথে থেকে মোকাবেলা করে এমপি থাকা অবস্থায় পুলিশের পিটুনি খেয়েছি রাজপথ ছাড়িনি। আজ যখন আমাদের প্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনা দেশকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে কাজ কাজ করে যাচ্ছেন বিশ্বের দরবারে একটি উন্নত রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্টা করে যাচ্ছেন তখন ষড়যন্ত্রকারীরা মাথা চড়া দিয়ে উঠেছে। রাজপথ ছাড়িনি ককনো ছাড়বনা ষড়যন্ত্রকারীরা এক মিনিট টিকতে পারবেনা। যুবলীগের নেতৃবৃন্ধকে ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে সকল ষড়যন্ত্রের দাত ভাঙ্গা জবাব দিতে হবে। নেত্রীর ব্যাপারে কোন আপোষ হবেনা কোন ছাড় দেয়া হবেনা। যেখানেই ষড়যন্ত্রকারী সেখানেই গনপিটুনি।