সাংবাদিক জিল্লুর রহীম আজাদের জানাজা সম্পন্ন, এফএসএফডি’র শ্রদ্ধা।

Link Copied!

ফেনী সাংবাদিক ফোরাম ঢাকা (এফএসএফডি)-এর প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য, সাবেক সহ-সভাপতি ও বর্তমান ইসি কমিটির সদস্য সিনিয়র সাংবাদিক জিল্লুর রহীম আজাদ (৬৩) আর নেই (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)।
শুক্রবার দিবাগত রাত ১টা ৪৫ মিনিটে তিনি বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

তার মৃত্যুতে এফএসএফডি গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছে। এক শোক বার্তায় সংগঠনের সভাপতি তানভীর আলাদিন ও সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ উল্লাহ ভুঁইয়া মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন। তার আত্মীয় ও পরিজনদের প্রতি সমবেদনা জানান।

আজ শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ডিআরইউ প্রাঙ্গনে জিল্লুর রহীম আজাদের প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজা পূর্বে ডিআরইউর সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু, সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব এবং মরহুমের পারিবারের পক্ষ থেকে তার চাচাতো ভাই সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন।

জানাজা শেষে মরহুমের কফিনে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন বিএফইউজের পক্ষে সভাপতি ওমর ফারুক ও মহাসচিব দীপ আজাদ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের পক্ষে সভাপতি সোহেল হায়দার চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক আকতার হোসেন, ডিআরইউর পক্ষে সভাপতি নজরুল ইসলাম মিঠু ও সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব, ফেনী সাংবাদিক ফোরাম ঢাকা (এফএসএফডি) পক্ষে সভাপতি তানভীর আলাদিন, সহ-সভাপতি আমানুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ উল্লাহ ভুঁইয়া, সিনিয়র সদস্য মোতাহের হোসেন, আবদুর রহিম ও মনসুর আহমেদ প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ স্ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুভাষ চন্দ্র বাদল।

দৈনিক কালবেলা’র সিনিয়র সাংবাদিক চিরকুমার জিল্লুর রহীম আজাদ সম্প্রতি বিএসএমএমইউতে ওপেনহার্ট সার্জারি অপারেশনের পরে দূর্ভাগ্যজনকভাবে সংক্রমিত হয়ে দ্বিতীয় দফায় সার্জারির কবলে পড়েন। তাই বেশ কিছুদিন ধরে সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন এবং সেখানেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

মরহুমের ছোটভাই জানান, আজ বাদ আসর ফেনীর দাগনভূঞার আমু ভুঞা হাটের মিয়া বাড়িতে তার দ্বিতীয় নামাজে জানাজার পরে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।

আশির দশকে ফেনী থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক পথ পত্রিকায় জিল্লুর রহীম আজাদের সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি। তারপরে প্রায় গত তিনযুগ ধরে তিনি রাজধানীতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সাংবাদিকতায় কর্মরত ছিলেন।

তিনি ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সদস্য ছিলেন।