ঢাকাবুধবার , ১৩ অক্টোবর ২০২১
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য
  9. জাতীয়
  10. তথ্য ও প্রযুক্তি
  11. প্রবাস বাংলা
  12. বিনোদন
  13. রাজনীতি
  14. শিক্ষা
  15. সম্পাদকীয়

চান্দিনায় দেবী দুর্গার মহাসপ্তমী পূজা অনুষ্ঠিত

আলিফ মাহমুদ কায়সার। কুমিল্লা প্রতিনিধি।।
অক্টোবর ১৩, ২০২১ ১:২৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা। শান্তি, সাম্য আর ভ্রাতৃত্বের অমর বাণী শোনাতে প্রতি বছর শারদীয় উৎসবে স্বর্গলোক থেকে মর্ত্যে আসেন দুর্গতিনাশিনী মহামায়া মা দুর্গা। ভক্তদের ডাকে সাড়া দিয়ে এক বছর পর পর মা আসেন। ধর্মের গ্লানি আর অধর্ম রোধ, সাধুদের রক্ষা, অসুরদের বধ আর ধর্ম প্রতিষ্ঠার জন্য দুর্গর্তিনাশিনী দেবী দুর্গা প্রতি বছর ভক্তদের মাঝে আবির্ভূত হন।

শারদীয় দুর্গাপূজার মহাসপ্তমী শেষ হয়েছে গত মঙ্গলবার । বিভিন্ন পূজামণ্ডপে সকালে নবপত্রিকা স্থাপনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় মহাসপ্তমীর আনুষ্ঠানিকতা। দিনব্যাপী আয়োজন করা হয়েছে নানা ধর্মীয় অনুষ্ঠানের। সকালে ত্রিনয়নী দেবী দুর্গার চক্ষুদান করা হয়।দেবীকে আসন, বস্ত্র, নৈবেদ্য, স্নানীয়, পুষ্পমাল্য, চন্দন, ধূপ ও দীপ দিয়ে পূজা করছেন ভক্তরা।

এদিকে চান্দিনার দোল্লাই নোয়াবপুর উৎসব মুখর পরিবেশে শারদীয় দুর্গোৎসব চলছে। এ উপলক্ষে মন্ডপগুলোকে সাজানো হয়েছে বর্ণীল সাজে। মন্ডপে মন্ডপে চলছে দেবী বন্দনা। ভক্তরা আসছেন দেবী দর্শনে। এবার উপজেলার ৭২টি মন্ডপে দুর্গাপুজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ উপলক্ষে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসন।

এবার দেবী গজে আগমন ও দোলায় গমন করবেন। এর মধ্য দিয়ে সমৃদ্ধ যেন হয় পুরো পৃথিবী এই প্রার্থনা করা হয় জানান নুরপুর শীল বাড়ীর পুজা পরিচালনায় পুজা পরিচালনায় পুজা পরিচালনায় পুরোহিত শ্রী নারায়ন চক্রবর্তী।
আগামী শুক্রবার দশমীতে রাত ১০টায় প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে দূর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে বলে জানান।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) মহাসপ্তমীতে চান্দিনার বিভিন্ন মন্ডপে পূজা অনু্ষ্ঠিত হয়েছে। সকালে দেবী বন্দনা, প্রসাদ বিতরণ ও বিকেলে ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। পূজার পর মন্ডপগুলোতে নানা বয়েসী দেবী দর্শনার্থীদের ভিড় বাড়তে থাকে। এবার বিভিন্ন দর্শনার্থীদের দেবীর কাছে প্রার্থনা করোনা মুক্ত পৃথিবী। মানুষ যেন আবার স্বাভাবিক সুস্থ জীবন যাপন করতে পারে।

এ প্রসঙ্গ পূজারি উজ্বল চন্দ্র শীল বলেন- পুজা মণ্ডপগুলোতে সকালেই শুরু হয় চণ্ডীপাঠের মাধ্যমে মহাসপ্তমীর পুজা। এরপর নবপত্রিকা স্থাপন করা হয় মণ্ডপে। দিনভর মণ্ডপে পুজা অর্চনা ও অঞ্জলি দেয়া হয়। সন্ধ্যায় আরতি অনুষ্ঠানের আয়োজন । বর্ণিল সাজের প্রতিমাগুলোতে দেখতে এরই মধ্যে আসতে শুরু করেন দর্শনার্থীরা। পৃথিবী থেকে যেন অতিমারি দুর হয়ে যায়- সে প্রার্থনা দর্শনার্থী ও পূজারিদের।

চান্দিনা উপজেলা পূজাকমিটির সদস্য ও দোল্লাই নবাবপুর কেন্দ্রিয় পুজা উৎসব কমিটির সদস্য শিক্ষক গৌতম চন্দ্র শীল প্রশাসনকে ধন্যবাদ দিয়ে জানান- এবছর করোনা ভাইরাসের সংক্রামণ রোধে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিটি পূজা মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

মহামারী করোনা থেকে মুক্তির জন্য বিশেষ প্রার্থনা করা হয়।
এখন পর্যন্ত উপজেলার কোন মন্ডপে অপ্রীতিকর কোন ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। সর্বত্রই শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিরাজ করছে বলে জানান তিনি।