৬ দফা দাবিতে ‘কোথায় যাবেন রাইড-শেয়ারিং গ্রুপ সিলেট’র মানববন্ধন

Link Copied!

রুবেল আহমদ। সিলেট প্রতিনিধি।।

পুলিশের হয়রানি বন্ধ, অ্যাপ কোম্পানির কমিশন ভাড়ার ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১০ ভাগ নির্ধারণসহ ছয় দফা দাবিতে সোমবার দিবাগত রাত ১২টা এক মিনিট থেকে ২৪ ঘণ্টা কর্মবিরতি পালনের ডাক দিয়েছিল রাইড শেয়ারের চালকরা।

দাবির পক্ষে মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে সুবিদবাজারে ৬ দফা দাবিতে মানববন্ধন করে ‘কোথায় যাবেন রাইড-শেয়ারিং গ্রুপ সিলেট’র নেতৃবৃন্দরা।

‘কোথায় যাবেন রাইড-শেয়ারিং গ্রুপ সিলেট’র সিনিয়র সহ-সভাপতি মোয়াইমিন আহমদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রানার পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন- সহ-সভাপতি সাবু আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ সুজন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক নাজির আহমদ, প্রচার সম্পাদক রায়হান আহমদ, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক নাজমুল ইসলাম, সহ-অর্থ বিষয়ক সম্পাদক এনামুল হক, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হাসিব, কার্যকরী কমিটির সদস্য সত্য মনি শর্মা, সুমন দাস, জামিল আহমদ, সুমন দে প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘উবারসহ কয়েকটি অ্যাপে মাত্রাতিরিক্ত কমিশন নেওয়া হয়। চালক রোদে পুড়ে বৃষ্টিতে ভিজে ১০০ টাকা আয় করলে অ্যাপ কোম্পানি ২৫ টাকা কমিশন নিয়ে নেয়। অ্যাপে চলা গাড়িকে যাত্রী পেতে রাস্তায় দাঁড়াতেই হয়। কিন্তু সিলেটের রাস্তায় পার্কিংয়ের জায়গা নেই। পার্কিংয়ের কারণে অ্যাপে চলা গাড়ি, মোটরসাইকেলকে প্রতিদিন মামলা ও জরিমানার বোঝা বইতে হয়। পার্কিংয়ের জন্য জায়গা দিতে হবে।’ করোনাকালে হাজারও শিক্ষিত যুবক অ্যাপে গাড়ি ও মোটরসাইকেল চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছে। কিন্তু পথে প্রতিমুহূর্তে তাদের পুলিশের হাতে লাঞ্ছিত হতে হয়। সামান্য কারণে পুলিশ চড় থাপ্পড় মারে চালকদের। কাগজ যাচাইয়ের নামে পুলিশ তাদের আটকে টাকা আদায় করে। কাগজে ত্রুটি না থাকলেও অবৈধ পার্কিং, লেন ভঙের অপরাধ দেখিয়ে মামলা দেয়। পুলিশের চাঁদা ও মামলার জরিমানা দিতে চালকের আয় শেষ হয়।

তারা বলেন, ‘অ্যাপ বেইজড ড্রাইভারস ইউনিয়ন অব বাংলাদেশ’-এর ৬ দফা দাবী সমূহ হলো, অ্যাপের গাড়ির চালকদের শ্রমিক হিসেবে স্বীকৃতি দিতে হবে। রাইড শেয়ারিংয়ের গাড়িতে আগাম আয়কর নেওয়া বন্ধ করতে হবে। গত দুই অর্থবছরে নেওয়া আগাম আয়করের টাকা ফেরত দিতে হবে।