রাজানগর ইউনিয়নে আনোয়ার মিয়া’র সমর্থনে উঠান বৈঠক

Link Copied!

নাইম তালুকদার। সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি।।

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার রাজানগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক ইউপি সদস্য আনোয়ার মিয়া সর্মথনে বিশাল উঠান বৈঠক অনুষ্টিত হয়েছে।

গতকাল রাত ৮টায় ইউনিয়নের প্রায় সাত গ্রামের মানুষের উপস্থিতিতে আনোয়ার মিয়ার নিজ বাড়িতে এ উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় বক্তব্য রাখেন- প্রবীন মুরুব্বী শাহিদ আলী, ফেনু মিয়া, অমিল হক, সাবেক ইউপি আবুল মিয়া, সিরাজ মিয়া, আব্দুল হক, ছানাউল্লাহ, বুরহান মিয়া, কনরুল ইসলাম

ফজর আলী, আব্দুল ওয়াদুদ, নিরঞ্জন দাস,করুনা দাস, হারুন রশীদ, সাবেক ইউপি সদস্য মনসুর আলী, রতি দাস,ময়না মিয়া,ওসিদ আলী আ: হামিদ সহ আরো অনেকেই।

অনুষ্ঠিত উঠান বৈঠকে চেয়ারম্যান প্রার্থী আনোয়ার মিয়া বলেন- সুনামগঞ্জ জেলার মধ্যে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বাসস্থান ও যোগাযোগ ব্যবস্থার ক্ষেত্রে রাজানগর ইউনিয়ন সবচেয়ে বেশী অবহেলিত রয়েছে। এই ইউনিয়নে ইতোমধ্যে অনেকজন জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছেন তারা যথাসাধ্য চেষ্টা করেছেন উন্নয়নের মাধ্যমে এই ইউনিয়নের চিত্র পাল্টানোর জন্য। কিন্তু আজও পর্যন্ত এই ইউনিয়নের মানুষের ভাগ্যের আশানুরুপ কোন পরিবর্তন পরিলক্ষিত হয়নি।

তিনি বলেন- এই এলাকার উন্নয়ন করতে হলে প্রথমত একটি ইউনিয়নের প্রধান প্রধান সমস্যাগুলো কি তা চিহ্নিত করেই কেবল সরকার থেকে বরাদ্দ এনে পরিকল্পনা মাফিক উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ করলেই এই ইউনিয়নের বিবিধ সমস্যাগুলোকে সমাধানের পথে নিয়ে আসা যেত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার টানা তিনবার এই দেশের জনসাধারণের প্রত্যক্ষ ভোটে রাষ্ট্রিয় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়ে দেশের তৃণমূল গ্রাম পর্যায় থেকে যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখেছেন। যা অতীতের কোন সরকারের আমলে তা সম্ভব হয়নি।

আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রাজানগর ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দিবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি বলেন- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি গ্রামকে শহরে পরিণত করতে গ্রাম পর্যায়কে অধিক গুরুত্ব দিয়ে যে উন্নয়নের ধারা শুরু করেছেন তাতে দক্ষ জনপ্রতিনিধি প্রতিটি ইউনিয়নে নির্বাচিত হলে একটি এলাকার অবকাঠামো উন্নয়ন সহজতর হবে। শেখ হাসিনা সরকারের আমলে বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়ক অতিক্রম করছে। যার ফলে বহির্বিশ্বের দেশগুলো আজ শেখ হাসিনার সরকারের এই উন্নয়নকে অনুসরণ ও অনুকরণ করছেন। আজ বিশ্বে বাংলাদেশ একটি উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রকোপ বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়লেও শেখ হাসিনার সরকার অত্যন্ত দক্ষতা ও বিচক্ষণতার সহিত মোকাবেলা করায় অন্যান্য দেশের তুলনায় তা বাংলাদেশে বিস্তার লাভ করতে পারেনি। এই করোনাকালীন সময়ে বিভিন্ন স্তরের কর্মহীন মানুষগুলোকে বিরামহীনভাবে খাদ্য সহায়তার পাশাপাশি প্রণোদনার ব্যবস্থা করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। কোনো মানুষকে না খেয়ে মরতে হয়নি।

তিনি আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তার জন্য উপস্থিত গ্রামবাসীসহ ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনসাধারণের দোয়া, আশীর্বাদ ও সহযোগিতা চেয়েছেন।