রংপুর সিভিল সার্জন’র ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত

শরিফা বেগম শিউলী
রংপুর প্রতিনিধিঃ

ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইন বাংলাদেশ সরকারের একটি গুরুত্বপূর্ন কর্মসূচী । প্রতি বছর ০২(দুই) বার, ০৬ মাস অন্তর অন্তর এই ক্যাম্পেইন হয়ে থাকে। আগামী ০৪ অক্টোবর ২০২০ হইতে ১৭ অক্টোবর ২০২০ ইং পর্যন্ত পক্ষকাল ব্যাপী ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইন সারা দেশ ব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে। এই সময়ে ৬-১১ মাস বয়সের সকল শিশুকে একটি করে নীল রঙের (১ লক্ষ আই. ইউ) এবং ১২ – ৫৯ মাস বয়সের সকল শিশুকে একটি করে লাল রঙের (২ লক্ষ আই, ইউ) ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে । ঐ সময়ে প্রতিদিন (ইপিআই এর দিন ব্যাতীত) সকাল ৮.০০ ঘটিকা থেকে বিকাল ৪.০০ ঘটিকা পর্যন্ত প্রতিটি টিকা কেন্দ্রে এবং বড় হাট-বাজার, বাস ষ্ট্যান্ড, লঞ্চঘাট এবং রেলওয়ে ষ্টেশনের অস্থায়ী/ভ্রাম্যমান কেন্দ্রে এই কার্যক্রম পরিচালিত হবে । আজ সকালে সদর হাসপাতাল সন্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত প্রস্তুতিমুলক সভায়

জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ হিরম্ব কুমার রায় বলেন, ক্যাম্পেইনের দিন শিশুকে ভিটামিন “এ” ক্যাপসুল খাওয়ানোর সাথে সাথে মায়েদেরকে শিশুদের পুষ্টি সংক্রান্ত ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হবে।

যেমন- জন্মের পর পর শাল দুধ খাওয়ানো, শিশুর ০৬ মাস বয়স পর্যন্ত শুধুমাত্র মায়ের বুকের দুধ বাচ্চাকে খাওয়ানো, ০৬ মাস পূর্ন হলে মায়ের দুধের পাশাপাশি ঘরে তৈরী পুষ্টিকর এবং সুষম বাড়তি খাবার শিশুকে খাওয়ানো ইত্যাদি। আপনার ০৬ মাস থেকে ০৫ বৎসর বয়সের প্রত্যেক শিশুকে ঐ সময়ে টিকাদান কেন্দ্রে নিয়ে আসুন এবং প্রয়োজন মত একটি করে ভিটামিন “এ” ক্যাপসুল খাওয়ান। আসুন আমরা সবাই মিলে ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইন প্রোগ্রাম কে সফল ও সার্থক করি । শিশুদের ভিটামিন “এ” এর অভাবজনিত অন্ধত্ব প্রতিরোধ করি সাথে ভিটামিন “এ” এর অভাবজনিত জটিলতা ATCAMER রি। সর্বোপরি শিশু মৃত্যু রোধ করি। এই কর্মসূচীকে সার্থক করতে সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করছে ইউনিসেফ, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং নিউট্রিশন ইন্টারন্যাশনাল নামক সংস্থা গুলো ।