যশোরে ফ্রী খাবার বাড়িতে খাবার খেল শতাধিক মানুষ

সোহেল রানা,যশোর প্রতিনিধি।।

“ক্ষুধা লাগলে খেয়ে যান “এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে যশোরের শার্শার নাভারণে পথ শিশু, এতিম ও ভারসাম্যহীন পাগলসহ ফ্রী খাবার বাড়ীতে খাবার খেল শতাধিক মানুষ। দেশসেরা উদ্ভাবক মিজানুর রহমানের উদ্যোগে ও ৪নং গদখালী ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও নবীবনগর মিতালী সংঘের সাধারণ সম্পাদক তরুণ সমাজ সেবক বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেনের আর্থিক সহযোগিতায়

রোববার (১১ই অক্টোবর) দুপুর ২টার দিকে শার্শার নাভারণ বুরুজবাগান উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে ফ্রী খাবার বাড়ীতে এ খাবার খাওয়ানো হয়।একই সাথে ঝিকরগাছা উপজেলার নবীব নগর নেদায়ে ইসলাম এতিমখানা ও হাফেজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মাঝে ধর্মীয় গ্রন্থ পবিত্র আল কোরআন,মাস্ক ও খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

উদ্ভাবক মিজানুর রহমান মিজান বলেন, করোনা ভাইরাস সবাইকে কি শিক্ষা দিয়েছে আমার জানা নাই,তবে এই করোনা আমাকে অনেক ভাল কিছু দিয়ে গেছে। করোনাকালে অনাহারে থাকা পথ শিশু ও রাস্তার ভারসাম্যহীন পাগলদের জন্য খাবার খাওয়াতে এদের জন্য সমাজের সবাইকে এগিয়ে আসার জন্য আহবান জানান তিনি।মানবসেবা হেল্প ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় এবং হাজার হাজার মানুষের অনুপ্রেরণায় এ খাবার বাড়ি।যতদিন বেঁচে থাকবো ততোদিন অনাহারির পাশে থেকে এইভাবে খাবার দেওয়ার চেষ্টা করে যাবো।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, ৪নং গদখালী ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও নবীবনগর মিতালী সংঘের সাধারণ সম্পাদক তরুণ সমাজ সেবক বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেন, নাভারণ ইউনিয়নের যুবলীগের যুগ্ম- আহবায়ক ও তরুন সমাজ সেবক উজ্জ্বল হোসেন,নবীব নগর নেদায়ে ইসলাম এতিমখানা ও হাফেজিয়া মাদ্রাসার মোহতামিম আবুল কালাম আজাদ,শিমুল সরকার,ফ্রী খাবার বাড়ী ও বাদল নার্সারির পরিচালক মোঃ বাদল হোসেনসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রিক মিডিয়ার সাংবাদিক এবং নানা শ্রেণী পেশার মানুষ।