চউক চেয়ারম্যানের সাথে চসিক প্রশাসকের মতবিনিময়

বিশেষ প্রতিবেদক।।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন বলেছেন, নগর উন্নয়নে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পারস্পরিক সমন্বয়ের মাধ্যমে প্রকল্প বাস্তবায়ন করলে অধিক ফল পাওয়া যাবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবকাঠামোগত ও দৃশ্যমান উন্নয়নের জন্য যথেষ্ট বরাদ্দ দিয়ে মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের অনুমোদন দিয়েছেন। চট্টগ্রামের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুবই আন্তরিক ও সংবেদনশীল। এই বিপুল পরিমান বরাদ্দ ব্যবহারের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও চট্টগ্রামবাসীর আকাঙ্খা পুরণ করতে হবে।

প্রশাসক আজ (০১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ জহিরুল আলম দোভাষের সাথে তাঁর অফিস কক্ষে সাক্ষাতকালে একথা বলেছেন।

এসময় চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সচিব মোহম্মদ সাইফুল আলম চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস্, চসিক প্রধান প্রকৌশলী লে.কর্ণেল সোহেল আহমদ, চউকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এ.এ.এম হাবিবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন বলেন, চট্টগ্রামের উন্নয়নের ক্ষেত্রে যেখানে সমস্যা ও প্রতিবন্ধকতা থাকবে তা পারষ্পরিক সমন্বয়ের মাধ্যমে সমাধান নিশ্চিত করতে পারলেই শুধু চট্টগ্রামবাসী নয় সমগ্র বাংলাদেশ উপকৃত হবে। চট্টগ্রাম বন্দর পৃথিবীর অন্যতম প্রধান প্রাকৃতিক বন্দর। এর ঐতিহ্য প্রায় ৩ হাজার বছরের। পাহাড় নদী-সমুদ্র বেষ্টিত চট্টগ্রাম নগরী ভূ-প্রাকৃতিক ঐশ্বর্যে ভরপুর। তাই চট্টগ্রামকেই বিশ্বের অন্যতম একটি নান্দনিক শহর হিসেবে গড়ে তোলার জন্য এখানে যথেষ্ট উপাদান আছে বলে মন্তব্য করেন সুজন।

প্রশাসক বলেন, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়, সেনাবাহিনী, ওয়াসা, ও সিটি কর্পারেশনকে একাধিক মেগা প্রকল্প দিয়েছেন। এসকল প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে চসিকের সাথে সমন্বয় সাধানের বিষয়টিও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্ধারণ করে দিয়েছেন।

প্রশাসক জানান, জলাবদ্ধতাসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের যে জনবল ও অভিজ্ঞতা রয়েছে তা অন্য কোন সরকারি, আধাসরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার নেই। তিনি আরো জানান, চট্টগ্রাম উন্ননের সাথে সংশ্লিষ্ট ২৩ টি সংস্থা প্রধানদের নিয়ে একটি সমন্বয় কমিটি হবে এবং একটি করে মাসিক সভা হবে। এতে পারষ্পরিক দূরত্ব কমে আসবে। নাগরিক দূর্ভোগ যেন প্রলম্বিত না হয় প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে ।

পরিবহন সেক্টরে ব্যবস্থাপনাগত শৃংখলা ফিরিয়ে আনতে চট্টগ্রামে পৃথক পৃথক বাস ও ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণে চসিক প্রশাসকের আগ্রহ ও পরিকল্পনার সাথে ঐকমত্য পোষণ করেন সিডিএ চেয়ারম্যান।