ইন্দুরকানীতে জোয়ারের পানিতে ডুবে গেছে বিভিন্ন জনপদ

ইন্দুরকানী(পিরোজপুর)প্রতিনিধিঃ

ইন্দুরকানীতে প্রবল বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে নি¤œঅঞ্চল সহ বিভিন্ন জন পদ তলিয়ে গেছে। সাধারণ মানুষ চরম বিপাকে পড়েছে।বৃহষ্পতিবার দিন ভর বৃষ্টি থাকায় ও জোয়ারের পানি বৃদ্ধিতে উপকুলিয় উপজেল ইন্দুরকানীর হাট, বাজার, রাস্তাঘাট, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তলিয়ে গেছে। এ অঞ্চলে সাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ২/৩ ফুট পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।
উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় চাড়াখালী আবাসন, পাড়েরহাট আবাসন, সহ অনেক গ্রাম তলিছে। এমনকি উপজেলার টগরা ফেড়িঘাটের সংযোগ সড়ক ও জোয়ারের পানিতে ডুবে গেছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইন্দুরকানী উপজেলার প্রায় নয়টি গ্রাম সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠ, কাঁচা-পাকা রাস্তা, মাছের ঘের, অধিকাংশ বাড়ির আঙিনাসহ সবজি ক্ষেত ও বাগান তলিয়ে গেছে।
ইন্দুরকানী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. রুহুল আমীন বাঘা জানান, উপজেলার নদী তীরবর্তী এলাকাগুলো জোয়ারের অতিরিক্ত পানিতে প্লাবিত হয়েছে। এর মধ্যে কালাইয়া, পূর্ব ইন্দুরকানী, কলারণ ,খোলপটুয়া, ট্যাংরাখালী, চন্ডিপুর, সাউদখালী, চরবলেশ্বর, পাড়েরহাটের আবাসন এলাকা, চরখালী ফেরিঘাট এলাকা প্লাবিত হয়েছে । ওই সব এলাকার অধিকাংশ বাড়ি প্লাবিত হয়ে কোনো কোনো ঘরে পানি উঠেছে বা পানি ছুঁই ছুঁই অবস্থা বিরাজ করছে।
এদিকে জোয়ারের পানিতে রাস্তা ঘাট তলিয়ে গাছের গোড়া আলগা হয়ে পরেছে বিদ্যুত লাইনের উপর গাছ পরে বিদ্যুৎ সঞ্চলনে মারাত্মক বিঘœীত হচ্ছে বলে ইন্দুরকানী পল্লিবিদ্যুৎ ইনর্চাজ ইসলাম হোসেন জানান।
উপজেলার কচাঁনদী পারের বেড়িবাঁধ বিভিন্ন জায়গায় ভাংগা থাকায় পানি ঢুকে এলাকা প্লাবিত হচ্ছ। দ্রুত এসকল মেরাতম করা দরকার।
ইন্দুরকানী উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মাদ আল মুজাহীদ বলেন আমরা সতর্ক আছি কোথাও কোন রকম সমস্য হলেই পানি বন্দী মানুষের কাছে সাহায্য পৌছে দেয়া হবে।
জেলা প্রশাসক আবু আলী মোহাম্মাদ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, পানিবন্দি পরিবারকে সব রকম খাদ্য ও আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে। এছাড়া আমার ব্যক্তিগত তহবিল থেকেও ছোট খাট সাহায্য দিতে প্রস্তুত আছি।