জিসা হত্যার লোমহর্ষক কাহিনী

- Advertisement -

জিসা খুব সহজ সরল এবং চরম বিশ্বাস প্রবণ একটি মেয়ে। সবাইকে খুব সহজেই বিশ্বাস করত। আব্দুল্লাহর কোন নির্দিষ্ট পেশা নেই। অনেকটা ভবঘুরে স্বভাবের। জিসাদের বাড়ির পাশে একটি চায়ের দোকানে কাজ করেছে কিছুদিন। সেখান থেকেই পরিচয় হওয়ার পর জিসা তাঁকে দিয়েছিল তার মায়ের মোবাইল নম্বর। আব্দুল্লাহর নিজের কোন মোবাইল নেই। এরপর সুযোগ পেলে অন্য কোন মোবাইল থেকে তাদের কথা হতো মাঝে মাঝে। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় আব্দুল্লাহ অটো রিক্সা চালক রকিবের মোবাইল ফোন থেকে ফোন দিয়ে কথা বলে জিসার সাথে। ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে রকিবের অটোতে শহরের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে রাত নয়টায় ইস্পাহানী ঘাটে যায় তারা। রকিব তাদেরকে নামিয়ে দিয়ে চলে আসে। রাতের নদীতে ভ্রমনের আনন্দ নিতে খলিলের নৌকা ৩০০ টাকায় ভাড়া করে আব্দুল্লাহ। নদীর মাঝে ঘুরতে ঘুরতে একসময় আব্দুল্লাহ ঝাঁপিয়ে পড়ে জিসার উপর। নিজেকে রক্ষা করতে প্রাণপণে চেষ্টা করে জিসা। কিন্তু জিসার শক্তির সাথে পেরে ওঠেনা আব্দুল্লাহ। সাহায্য করে মাঝি খলিল। জিসা’র দু পা ধরে রাখে সে। আর আব্দুল্লাহ জোর পূর্বক ধর্ষণ করে রক্তাক্ত করে জিসাকে। তার গগণবিদারী হাহাকার রাতের আঁধারের নদীতে কেউ শোনেনি। মুখ বন্ধ করে ধরে রাখে আব্দুল্লাহ। তারপর রক্তাক্ত দেহে আবার ধর্ষণ করে মাঝি খলিল। জিসা তখন ক্লান্ত ও অবসন্ন। ধর্ষণের আঘাতে চরম ক্ষতিগ্রস্থ তার শরীর। যন্ত্রণায় কাতর জিসা শুধু বলে বাড়িতে গিয়ে সব বলে দিবে। এমন কথায় ভয় পেয়ে যায় আব্দুল্লাহ ও খলিল। এবার নতুন মিশনে নামে তারা দু’জন। জিসার গলা টিপে ধরে আব্দুল্লাহ আর পা চেপে রাখে খলিল। একসময় নিস্তেজ হয়ে যায় জিসার দেহ। প্রাণ চলে যায় দূর আকাশে। পড়ে থাকে দেহ রাতের আঁধারে নদীর বুকে খলিল মাঝির নৌকায়। স্রোতাস্বিনী শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেলে দেয় জিসা’র মরদেহ।
০৯ আগস্ট বিজ্ঞ আদালতে নির্মম এ খুনের রোমহর্ষক বর্ণনা দিয়ে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে গ্রেপ্তারকৃত আসামি আব্দুল্লাহ (২২), রকিব (১৯) ও খলিলুর রহমান (৩৬)।

আদালতের নির্দেশে আসামিরা এখন জেলখানায় বন্দি। মা রেখার জীবনে আর ফিরে আসবেনা জিসা। এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি জিসার লাশ। শেষ দেখাও হবে কিনা জিসার মুখটা তাও অনিশ্চিত। তবে জড়িত আসামিদের সনাক্ত ও বিচারের মুখোমুখি করতে পেরেছে পুলিশ। জিসার পরিবার কখনো ভাবতে পারেনি তাদের জিসা এমন নির্মম ধর্ষণ ও খুনের শিকার হয়েছে। তারা পুলিশের কাছেও আসতে চায়নি। তবে যখন পুলিশের নিকট এসেছে, পুলিশ তাদের সর্বোচ্চ মেধা ও শ্রম দিয়ে অকল্পনীয় ক্লুলেস হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্ঘাটন করেছে। পুলিশ এতটুকু না করলেও হয়তো রেখা আক্তারের কোন অভিযোগ থাকত না। কারণ তারা এসবের কিছুই জানেনা বা ভাবতেও পারেনি। শুধুমাত্র পেশাগত দায়িত্ববোধ থেকেই এমন ঘটনায় জড়িতদের বিচারের আওতায় আনতে সক্ষম হযেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ।

- Advertisement -

সর্বশেষ খবর

মিয়ানমারে সমরসজ্জায় সীমান্তে উত্তেজনা বাড়ছে

মো.শহীদ। উখিয়া প্রতিনিধি।। বিপি ৪৫ এ সালিডং বর্ডার ক্যাম্পের কাছাকাছি মিয়ানমারের সেনা ক্যাম্প মিয়ানমারের বাংলাদেশ সীমান্তে ব্যাপক সমরসজ্জার কারণে উত্তেজনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাখাইন...
- Advertisement -

আলমডাঙ্গার ফরিদপুরে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচীর উদ্বোধন

সাইফ জাহান। চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি।। আলমডাঙ্গার ফরিদপুরে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়েছে। বেলগাছি ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এস এম গোলাম সরোয়ার শামীম এর উদ্যোগে...

পাপ্পা চক্রবর্তীর গ্রেফতারে ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নিন্দা ও প্রতিবাদ

তাহেরুল আনাম ঃ দিনাজপুর শহর আওয়ামী লীগের ৩নং ওয়ার্ডের মুন্সিপাড়া মহল্লা কমিটির সভাপতি সুব্রত চক্রবর্তী পাপ্পাকে গ্রেফতারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী...

শ্রদ্ধাভরে ফেনীর প্রয়াত কীর্তিমানদের স্মরণ করলো ‘আ ভা স’

বিশেষ প্রতিনিধি।। বিগত সাত মাসে করোনা পরিস্থিতির সময়ে প্রয়াত ফেনীর কৃতি সন্তানদের সামাজিক ও ধর্মীয়ভাবে স্বরণ করা হয়েছে। আ ভা স- আমরা...

রিলেটেড নিউজ

মিয়ানমারে সমরসজ্জায় সীমান্তে উত্তেজনা বাড়ছে

মো.শহীদ। উখিয়া প্রতিনিধি।। বিপি ৪৫ এ সালিডং বর্ডার ক্যাম্পের কাছাকাছি মিয়ানমারের সেনা ক্যাম্প মিয়ানমারের বাংলাদেশ সীমান্তে ব্যাপক সমরসজ্জার কারণে উত্তেজনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাখাইন...

আলমডাঙ্গার ফরিদপুরে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচীর উদ্বোধন

সাইফ জাহান। চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি।। আলমডাঙ্গার ফরিদপুরে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়েছে। বেলগাছি ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এস এম গোলাম সরোয়ার শামীম এর উদ্যোগে...

পাপ্পা চক্রবর্তীর গ্রেফতারে ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নিন্দা ও প্রতিবাদ

তাহেরুল আনাম ঃ দিনাজপুর শহর আওয়ামী লীগের ৩নং ওয়ার্ডের মুন্সিপাড়া মহল্লা কমিটির সভাপতি সুব্রত চক্রবর্তী পাপ্পাকে গ্রেফতারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী...

শ্রদ্ধাভরে ফেনীর প্রয়াত কীর্তিমানদের স্মরণ করলো ‘আ ভা স’

বিশেষ প্রতিনিধি।। বিগত সাত মাসে করোনা পরিস্থিতির সময়ে প্রয়াত ফেনীর কৃতি সন্তানদের সামাজিক ও ধর্মীয়ভাবে স্বরণ করা হয়েছে। আ ভা স- আমরা...
- Advertisement -